মর্মান্তিক ঘটনা,বিদায় বেলায় অতিরিক্ত কেঁদে প্রাণ হারালেন কনে

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে নানা রকম ভিডিও ভাইরাল হয় প্রতিদিন। সেখানে নাচ-গান প্রভৃতি অ্যাক্টিভিটির সাথে মার্শাল আর্ট।

এছাড়াও নানা রকম অদ্ভুত ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতে দেখি আমরা। বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে বহু মানুষ তাদের প্রতিভাকে বিশ্বের সামনে প্রদর্শন করতে পারছেন।

দেশের কোনায় কোনায় এমন অনেক মানুষ রয়েছেন, যাদের প্রতিভা থাকলেও নেই সুযোগ। তবে সোশ্যাল মিডিয়া এবং বিভিন্ন অ্যাপসের মাধ্যমে।

তারা নানারকমভাবে বিশ্বের সামনে নিজেদের প্রতিভা প্রদর্শন করতে পারছেন। প্রতিভা প্রদর্শনের দৌড়ে কিশোর-কিশোরী যুবক-যুবতীদের সাথে বয়স্করাও পিছিয়ে নেই।

তবে বর্তমানে নানা রকম অ্যাপের মাধ্যমে আকর্ষণীয় ভিডিও পোস্ট করে ভাইরাল হয়ে যাচ্ছেন প্রায় প্রতিদিনই নানা মানুষ।

এই সমস্ত অ্যাপগুলি ব্যবহার করে মানুষ তার প্রতিভাকে করে তুলেছে আরো আকর্ষণীয়। সুন্দরভাবে পরিবেশিত ভিডিওগুলি দেখে মন জুড়িয়ে যায় সকলের।

যদিও উপযুক্ত প্রতিভা ছাড়া কোন অ্যাপের মাধ্যমে কিছু করা সম্ভব নয়, সবকিছুর জন্য চাই প্রতিভা। তবে শুধু চেয়ে এন্টারটেইনমেন্টেরই ভিডিও।

আমরা ভাইরাল হতে দেখি তা নয়, পৃথিবীর নানা প্রান্তে প্রতিনিয়ত ঘটে যাচ্ছে নানা ঘটনা। এমনকি নানা ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনার খবর।

আমরা এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে দেখতে পাই। সম্প্রতি একটি ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বিশাল বড় জলাশয় এর পাশে ব্রিজ ভেঙে একটি ট্রাক অর্ধেক জলের তলায় চলে গেছে। ভিডিওটি সত্যিই দর্শকদের শিহরিত করে তুলেছে। ট্রাকটির অর্ধেক জলের তলায় রয়েছে,

এবং সম্ভবত ট্রাকটির ড্রাইভার ক্রমাগত পাড়ে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন। চারিদিকে লোকজন ভর্তি হয়ে গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে পাটুরিয়া ঘাটে।

পাটুরিয়া ঘাটে ফেরিক পল্টন থেকে আসার সময় একটি ট্রাক হঠাৎই তার ভারসাম্য হারিয়ে জলে পড়ে যায়, ভাগ্যক্রমে বেশি লোক না থাকায় কারুর নিহত হবার সংবাদ পাওয়া যায়নি।

সাংঘাতিক ভিডিওটি কাঁপিয়ে দিয়েছে সবাইকে। চারি পাশে থাকা মানুষটা তার ড্রাইভার কে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন।

ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে “বাবু শরীফ বি” নামক একটি অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল থেকে। হাজার হাজার মানুষ ভিডিওটি লাইক করেছে।

বিশেষ করে ওখানে থাকা চারপাশের মানুষের প্রশংসা করেছেন সবাই, তাদের জন্যই ডুবে যাওয়ার ড্রাইভারটি তার প্রাণ ফিরে পেয়েছে।

ভিডিওটি সবাইকে করে দিয়েছে রোমাঞ্চিত। পৃথিবীতে ঘটে যাওয়া এই রকম ঘটনা গুলি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমাদের কাছে পৌঁছাতে পারে।