মাত্র ২৫০ টাকায় আপনার মেয়ের জন্য করুন ‘সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা’! পড়াশুনা শেষের সাথে সাথে আপনার মেয়ে হয়ে যাবে লাখপতি

মেয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তায় পড়েছেন? এই বাজারে মেয়ের ভবিষ্যৎ কিভাবে সুরক্ষিত করবেন ভেবে পাচ্ছেন না, ভাবনা নেই সরকারের পক্ষ থেকে মেয়েদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার জন্য চালু করা হয়েছে নতুন একটি স্কিম।

এই স্কিমটি আপনি পোস্ট অফিসের দ্বারা পেয়ে যাবেন। ভারতের যে কোনো স্থানে যে কোনো জায়গা থেকে আপনি এই স্কিমটি চালু করতে পারবেন। তবে তার আগে চলুন এই স্কিমটির সম্বন্ধে বিষদে কিছু তথ্য জেনে নিন।

সরকারের পক্ষ থেকে ১০ বছরের কম কন্যা সন্তানদের জন্যই এই স্কিমটি বাস্তবায়িত করা হয়েছে। যাতে ভবিষ্যতে তার শিক্ষা বা বিবাহ সংক্রান্ত কোনো কাজে বাধা না আসতে পারে।

এই স্কিমটি যে কোনো সমপ্রদায়ের মানুষ তার কন্যার ভবিষ্যত্ রক্ষার জন্য করতে পারবেন। আর সবথেকে বড় কথা হল এই স্কিমটি আপনি চালু করতে পারবেন মাত্র ২৫০ টাকা থেকে।

এই স্কিমে আপনি মোট ১.৫ লক্ষ টাকা ইনভেস্ট করতে পারবেন। এরপর ২১ বছর পর সুদ সমেত সেই টাকা আপনি ফেরত পাবেন। ২১ বছরের আগে আপনি টাকা কোনোভাবেই বের করতে পারবেন না।

আর একটা কথা এই স্কিমটির সবথেকে বড় একটি সুবিধা হল আপনি বা আপনার কন্যা যে টাকাটি ফেরত পাবে সেটি কর মুক্ত হবে। অর্থাৎ সেই টাকা থেকে সরকার কোনো রকম কর আদায় করবে না।

এবার চলুন জেনে নিন স্কিমটি কাজ কিভাবে করে। আপনার বাড়িতে যদি ১০ বছরের কম কন্যা সন্তান থেকে থাকে তাহলে আপনি এই স্কিমটি করে নিতে পারবেন। অ্যাকাউন্ট খোলার পর ১৪ বছর অবধি আপনি টাকা জমা করতে পারবেন, ২১ বছর পর আপনি পুরো টাকা চাইলে বের করে নিতে পারবেন।

যদিওবা স্কিমটির মতে যদি আপনার মেয়ের ১৮ বছরের পর বিয়ে হয়ে যায় তখনও আপনি টাকা তুলে নিতে পারবেন। তাছাড়াও মেয়ের ১৮ বছর হয়ে গেলে ৫০ শতাংশ টাকা আপনি পেয়ে যাবেন।

এই স্কিমটি করবার জন্য আপনার যে যে কাগজপত্র প্রয়োজন পরবে সেগুলি একবার জেনে নিন। পোস্ট অফিস বা ব্যাংকে আপনার মেয়ের জন্ম পরিচয় পত্র জমা করতে হবে। যার মাধ্যমে প্রমাণ হবে যে আপনার মেয়ের বয়স ১০ বছরের কম।

এছাড়াও বাচ্চা ও বাচ্চার মাতা- পিতার পরিচয় পত্র যেমন আধার কার্ড, রেশন কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স,পাসপোর্ট প্রভৃতি জমা করাতে হবে সাথে ঠিকানার প্রমাণপত্র জমা করাতে হবে। একটা বাচ্চার জন্য একটাই অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে।

একজন অভিভাবক অন্তত পক্ষে দুজন বাচ্চার জন্য অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। বাচ্চা যদি যমজ হয় তাহলে একজনের নামের সুবিধা আর একজন বাচ্চা পেয়ে যাবে।

তাহলে আর দেরি কিসের, যদি আপনার বাড়িতেও ১০ বছরের কম কন্যা সন্তান থেকে থাকে তাহলে আজই তার নামে সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা খুলে ফেলুন আর তার ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করুন।